১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, রাত ১২:০৫
বিজ্ঞাপনের জন্য ই-মেইল করুনঃ ads@primenarayanganj.com

যুদ্ধজাহাজ পরিদর্শনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

প্রাইমনারায়ণগঞ্জ.কম

প্রাইম নারায়ণগঞ্জ:

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত যুদ্ধজাহাজ পরিদর্শন করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম. মোজাম্মেল হক ও নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান। বুধবার (১৮ নভেম্বর) বিকেলে বন্দর উপজেলার সোনাকান্দা এলাকায় কর্ণফুলী ডকইয়ার্ডে এ যুদ্ধজাহাজ পরিদর্শন করেন তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সাবেক নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান এমপি, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সেলিম রেজা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী, সদরউপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদা বারিক, বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক কাজী ওয়াকিল নওয়াজ, নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক শেখ মাসুদ কামালসহ নৌ নিরাপত্তা বাহীনীর সদস্যরা।

যুদ্ধ জাহাজ পরিদর্শন শেষে গণমাধ্যমের প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি বিজরিত জাহাজটি সংস্কার করে ভালো একটি স্থানে রাখা হবে। এই জাহাজটি আমাদের একটি নির্দশন। জাহাজটি সংরক্ষণের জন্য দু’টি জায়গা পছন্দ করা হয়েছে। একটি হলো মাদারীপুরের এসপিটিআই প্রশিক্ষণকেন্দ্র ও অপরটি চাঁদপুরের নদীবন্দরের পাশে। যুদ্ধজাহাজটি এমনভাবে সংরক্ষণ করা হবে যাতে মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে নেভাল কমান্ডোর ইতিহাস সারাবিশে^র মানুষ জানতে পারে। একটা জাদুঘর করা হবে যা মানুষের কাছে আকর্ষণীয় হিসেবে থাকবে।

৬টি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। যাতে বিআইডব্লিউটিএ, বুয়েট, চীফ আর্কিটেক্ট, নেভাল, জাদুঘরের প্রতিনিধি থাকবে। একমাসের মধ্যে তারা দু’টি কাজ করবে। একটি হলো তারা স্থান চূড়ান্তকরণ করবে এবং দ্বিতীয়ত এটাকে আর্ন্তজাতিক মানের হিসেবে গড়ে তুলতে কি কি ধরনের ডিজাইন করা যায় কিকি থাকতে পারে সে বিষয়ে তারা আইডিয়া দিবে। আমরা বিদেশেও দেখি এ ধরনের বিভিন্ন সামগ্রী সংরক্ষণ করতে। ওই কমিটি আইডিয়া ও বাজেট দেওয়ার পরে সেটা নিয়ে আমরা কাজ করবো এবং বাজেট পাশের বিষয়ে পদক্ষেপ নিব।

রাজধানীতে মৌলবাদী শক্তি বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মাণে বাধার সৃষ্টি করছে এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, অনেকেই অনেক কিছু বলে এগুলো আমলে নেওয়ার মতো না। আমাদের সরকার অত্যন্ত সক্ষম এবং দায়িত্বশীল সরকার। সরকার যেটা সিদ্ধান্ত নেয় সেটা বাস্তবায়ন করার সক্ষমতাও রাখে।

রাস্তাঘাটে এখানে সেখানে কারো কোন কথা আমলে নেয়ার প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করিনা। বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য হবেই। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাকিস্তানী হায়েনা বাহিনী কিভাবে আত্মসমর্পণ করেছে সেটা নির্মিত হবে। সারাদেশেই অসংখ্য ভাস্কর্য আছে। এটাতো নতুন কিছুনা ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়, গাজীপুরসহ সারাদেশেই অনেক স্থানেই রয়েছে। এসমস্ত অর্বাচীনদের কথা আমলে নেওয়ার কোন গুরুত্ব দেখনিা।

আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার (রাত ১২:০৫)
  • ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৮ই রজব, ১৪৪২ হিজরি
  • ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)

বাছাইকৃত সংবাদ

No posts found.