১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, দুপুর ১২:৩৭
বিজ্ঞাপনের জন্য ই-মেইল করুনঃ ads@primenarayanganj.com

মাঠে যাচ্ছে ঘরের রাজনীতি

প্রাইমনারায়ণগঞ্জ.কম

করোনা ভাইরাসের ধাক্কা সামলিয়ে ফের সক্রিয় হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ও সংক্রমণ প্রতিরোধে ঘরের রাজনীতি যাচ্ছে মাঠ পর্যন্ত। উঠে যাচ্ছে ভার্চুয়াল রাজনীতি, ঘর থেকে বেরিয়ে আসছে দলগুলো। এরই ধারাবাহিকতায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাধ্যমে মাঠ চাঙ্গা করার পরিকল্পনা করছেও তারা। সবশেষ মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ও হতাহতদের পরিবারের খোঁজ-খবর নেয়াকে কেন্দ্র করে সক্রিয় হয়ে উঠেছে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ-বিএনপিসহ সকল দলের রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, দলগুলোর কেন্দ্রীয় নির্দেশে জেলায় আওয়ামীলীগ ও বিএনপিসহ সকল দলের নেতাকর্মীরা প্রস্তুতি নিচ্ছে স্থানীয় সরকারসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নির্বাচনে অংশগ্রহণেরও। এজন্য ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তথা ১৪ দল, বিএনপি, বিরোধী দল জাতীয় পার্টি, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট, বাম দলসহ বিভিন্ন পর্যায়ের রাজনৈতিক দলগুলো ইতোমধ্যে নিজ নিজ দলের ভাল-মন্দ প্রার্থী, কর্মীদের খোঁজ নিতে শুরু করেছে। অনেক দলের নেতাকর্মীরা তাকিয়ে আছে কেন্দ্রের চুড়ান্ত নির্দেশনার দিকে। নির্দেশ দিলেই পুরোদমে মাঠে নেমে পড়তে প্রস্তুত আছেন বলে জানায় তৃণমূলের নেতাকর্মীরা।

চীনের পর বিশ্বের বাঘা বাঘা দেশে করোনা হানা দেয়। তারই ধারাবাহিকতায় চলতি বছর আট মার্চ দেশে প্রথম ৩ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়, যার দুইজন আবার নারায়ণগঞ্জেরই। এরপর ২৬ মার্চ থেকে নারায়ণগঞ্জসহ সারা দেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে ৩১ মে তে তুলে নেয়া হয় লকডাউন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চালু হয় গণপরিবহন। এখন পর্যন্ত সারাদেশের ন্যায় নারায়ণগঞ্জের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানও বন্ধ রয়েছে। তবে ধাপে ধাপে সচলের পথে হাঁটতে শুরু করেছে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি।

করোনার শুরুর দিকে পাল্টে যায় নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি। দলগুলোর রাজনৈতিক কার্যালয়, দলীয় সভা- সমাবেশ এমনকি বিয়ে-শাদীসহ সকল ঘরোয়া আয়োজনও বন্ধ করে দেয়া হয়। বাড়তে থাকে অসহায় ও হতদরিদ্র মানুষের খাদ্য সংকট। এ সংকট মোকাবেলায় রাজণৈতিক দলগুলোর পাশাপাশি সামাজিক ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে শুরু হয় ত্রাণ তৎপরতা। বর্তমানে করোনাভাইরাসের প্রকোপ না কমলেও অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে এসেছে জনজীবন। ধীরে ধীরে সরব হচ্ছে রাজনীতির মাঠও। রাজনৈতিক নেতাদের মতে, পুরনো মোড়কে ফিরছে দলীয় রাজনৈতিক কর্মকান্ড।

জানা যায়, ইতিমধ্যেই সচল রাজনীতির পথে এগিয়েছে আওয়ামীলীগ। দলীয় স্বাভাবিক কার্যক্রমে ফিরছে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা। বঙ্গবন্ধুর শাহাদাৎ বার্ষিকীকে কেন্দ্র করে গত মাস থেকেই উজ্জীবিত হয়ে উঠে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের রাজনীতি। এরপর তল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহতদের খোজ খবর নিয়েছেন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা। জেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকার অনুদান দেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

এছাড়া মহানগর আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে প্রত্যেক পরিবারকে ১০ হাজার ও জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ২০ হাজার করে টাকা দেয়ারও ঘোষণা দেয়া হয়েছে। সাংসদ শামীম ওসমান, মেয়র আইভী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন, আব্দুল হাই, ভিপি বাদল, খোকন সাহাসহ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের সকল নেতৃবৃন্দই ঘটনাস্থলের উপস্থিত হয়েছেন। তাছাড়া, দুই বছর আগে মেয়াদ শেষ হওয়া মহানগর আওয়ামীলীগের সম্মেলন শীগ্রই হতে পারে বলে মনে করছেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। জেলা কমিটির মেয়াদও শেষের পথে, অন্য কমিটিগুলোর মতো দেরী না করে মেয়াদ শেষ হওয়ার সাথে সাথেই বা মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন হতে পারেন বলেও মনে করেন তারা। এছাড়া জেলা ও মহানগর যুবলীগের শক্তিশালী কমিটিও অচিরেই গঠন করা হবে বলে জানায় পদ-প্রত্যাশী অনেকে।

এদিকে, বিএনপির রাজনীতি অনেকটা থমকে ছিলো কেন্দ্রীয় নির্দেশনার কারণে। তবে করোনাকালীন স্থবির রাজনীতি থেকে বেরিয়ে দলকে চাঙ্গা করতে চায় বিএনপি। অভ্যন্তরীণ নানা সঙ্কটের মুখেও সামনে এগিয়ে যেতে চান নেতারা। এ লক্ষ্যে শীঘ্রই জেলা ও মহানগর বিএনপিসহ সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করা হবে বলে জানায় সিনিয়র নেতৃবৃন্দরা।

এক্ষেত্রে তারা তাকিয়ে আছে কেন্দ্রের নির্দেশনার দিকে। তবে, তল্লায় মসজিদে বিস্ফোরণকে কেন্দ্র করে অনেকটাই সক্রিয় হয়ে উঠেছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা। এড. তৈমুর আলম খন্দকার, মামনু মাহমুদ, এড. আবুল কালাম, মনিরুল ইসলাম রবি, এড. সাখাওয়াত হোসেন খান, আজহারুল ইসলাম মান্নান, নজরুল ইসলাম আজাদ, মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভুইয়া, মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদসহ প্রায় সকল হেভিওয়েট নেতারা নিজ নিজ বলয়ের নেতাকর্মীদের নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন, হতাহতদের পরিবারের সদস্যদের দিয়েছে শান্তনা, জানিয়েছেন গভীর শোক ও সমবেদনা।

এছাড়া সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির জেলা শাখার আহবায়ক আবুল জাহের কিছুদিন আগেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। জেলায় দুই জন এমপি থাকার পর এমনিতেই এ জেলা জাপার কার্যক্রম কিছুটা ধীর গতির, তার উপর করোনা ও জেলার আহবায়কের মৃত্যুর কারনে দলটি অনেকটা কাগজে দলে পরিণত হয়েছে। তবে নেতাকর্মীদের প্রত্যাশা হয়তো এবার ঘুরে দাড়াবে জাতীয় পার্টি। তাদের মতে, আগামী স্থানীয় নির্বাচনগুলোকে সামনে রেখে দলকে আরও শক্তিশালী করতে হবে।

তাছাড়া ইসলামী আন্দোলন, খেলাফত মসজিল, কমিউনিষ্ট পার্টি, জাসদ, বাসদ সহ অন্যান্য রাজনৈতিক ডান ও বামপন্থী দলগুলোও তাদের মাঠের তৎপরতা বাড়াতে কাজ করছে বলে জানা যায়।

আজকের দিন-তারিখ

  • মঙ্গলবার (দুপুর ১২:৩৭)
  • ২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৮ই রজব, ১৪৪২ হিজরি
  • ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল)

বাছাইকৃত সংবাদ

No posts found.